কিউবার বিপ্লবী নেতা ফিদেল কাস্ত্রোর বড় ছেলে ফিদেল কাস্ত্রো ডায়াজ-বালার্ট আত্মহত্যা করেছেন।

">
Pran All Time

ফিদেল কাস্ত্রোর ছেলের আত্মহত্যা

UNB NEWS

শুক্রবার ০২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১২:১৩:২৩ পিএম

ফিদেল কাস্ত্রোর ছেলের আত্মহত্যা

হাভানা, ২ ফেব্রুয়ারি (এপি/ইউএনবি)- কিউবার বিপ্লবী নেতা ফিদেল কাস্ত্রোর বড় ছেলে ফিদেল কাস্ত্রো ডায়াজ-বালার্ট আত্মহত্যা করেছেন।

দীর্ঘদিন ধরে তিনি বিষণ্ণতার চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। পরে বৃহস্পতিবার তিনি আত্মহত্যা করেন বলে জানিয়েছে দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম। মৃত্যুর সময় তার বয়স হয়েছিল ৬৮।

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট কিউবাডিবেট বলেছে, ফিদেল কাস্ত্রো ডায়াজ-বালার্ট ‘গভীরভাবে বিষণ্ণ’ ছিলেন।

রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের একটি সংক্ষিপ্ত নোটে বলা হয়েছে, তার চিকিত্সাটিতে প্রাথমিকভাবে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পরে তাকে পর্যবেক্ষণে রাখার প্রয়োজন ছিল।

কিউবার বিপ্লবী নেতার জ্যেষ্ঠ পুত্র পিতার মতোই অনুরূপ পরিচিতি ছিল। তার ডাক নাম ছিলো ফিদেলিতো বা ছোট ফিদেল।

কাস্ত্রো ডায়াজ-বালার্ট রাষ্ট্রীয় কাউন্সিলের বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা ছিলেন এবং তিনি কিউবা একাডেমি অব সায়েন্সেসের ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন। তিনি সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নের পারমাণবিক পদার্থবিদ্যা অধ্যয়ন করেন এবং এক সময়ে কিউবা পারমাণবিক কর্মসূচির প্রধান ছিলেন। তিনি রাজনৈতিক বিষয় থেকে দূরে থাকতেই পছন্দ করতেন।

কাস্ত্রো ডায়াজ-বালার্ট ফিদেল ক্যাস্ত্রোর প্রথম স্ত্রী মিরতা দিয়াজ-বালার্টের ঔরসজাত। কিউবার অভিজাতশ্রেণির মিরতা দিয়াজকে ফিদেল কাস্ত্রো তার বিপ্লবী সংগ্রামের আগে বিয়ে করেন। তার এই বিপ্লবী সংগ্রামের ফলেই তিনি এবং তার ভাই রাউল ক্ষমতায় এসেছিলেন।  

কাস্ত্রো ডায়াজ-বালার্ট তার মাতৃত্বের বংশের সম্পর্কের কারণে ফ্লোরিডার কিউবান নির্বাসিতদের প্রতিনিধিত্বকারী রিপাবলিকান কংগ্রেসম্যান মারিও ডায়জ-বালার্টের চাচাত ভাই।

এর আগে ২০১৬ সালের নভেম্বরে ৯০ বছর বয়সে মারা যান ফিদেল কাস্ত্রো।