রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তি বিষয়ে উচ্চ আদালতের আদেশের পর অস্থিতিশীল মালদ্বীপের সামনের দিনের সিদ্ধান্ত নিতে আগাম নির্বাচনের ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট মামুন আবদুল গাইয়ুম।

">
Pran All Time

মালদ্বীপ প্রেসিডেন্টের আগাম নির্বাচনের ঘোষণা

UNB NEWS

রবিবার ০৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০১:০১:১৮ পিএম

মালদ্বীপ প্রেসিডেন্টের আগাম নির্বাচনের ঘোষণা

মালে, ৪ ফেব্রুয়ারি (এপি/ইউএনবি) - রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তি বিষয়ে উচ্চ আদালতের আদেশের পর অস্থিতিশীল মালদ্বীপের সামনের দিনের সিদ্ধান্ত নিতে আগাম নির্বাচনের ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট মামুন আবদুল গাইয়ুম।

দেশটির উচ্চ আদালতের রায়ের পর প্রথমবার জনগণের উদ্দেশে দেয়া বক্তব্যে তিনি বলেন, নভেম্বরে মেয়াদ পূর্ণ হবার আগেই তিনি নির্বাচন দিতে চান। যাতে করে দেশটির জনগণ তাদের আগামী দিনের নেতৃত্ব নির্বাচন করতে পারেন।

দেশটির আদালত রাজবন্দিদের মুক্তি ও পুনর্বিচারের আদেশ দেয়ার পর দেশটিতে রাজনৈতিক অস্থিরতা অব্যাহত রয়েছে।

এদিকে রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তির আদেশ দেয়ার পাশাপাশি আদালত ১২ জন সংসদ সদস্যকে আবারো পুনর্বহালের নির্দেশ দিয়েছেন। বিরোধী দলের প্রতি অনুগত অভিযোগে তাদের দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল।

এই আইন প্রণেতারা সংসদে ফিরলে মালদ্বীপে মামুন আব্দুল গাইয়ুমের নেতৃত্বাধীন প্রগ্রেসিভ পার্টি ৮৫ সদস্যের সংসদে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারাবে। এর ফলে প্রেসিডেন্টের প্রতিদ্বন্দ্বী ক্ষমতা হিসেবে সংসদ কার্যকর হতে পারে।

বিরোধীদলীয় সংসদ সদস্য আহমেদ মাহমুফ বলেন, ৫ ফেব্রুয়ারি থেকে সংসদ অধিবেশন অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হয়েছে। তিনি বলেন, সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারানোর ভয়ে সরকার সংসদ অধিবেশন স্থগিত করে থাকতে পারে।

এদিকে প্রেসিডেন্ট মামুন জানান, তিনি আদালতের এই রায় প্রত্যাশা করেননি।

তিনি বলেন, আমরা সুপ্রিম কোর্টের আদেশকে সম্মান দেখাতে কাজ করছি। যাতে জনগণের কোনো অসুবিধা না করে তা নিশ্চিত করা যায়।

এর আগে শনিবার আদালতের আদেশের পর মামুন দেশটির পুলিশ প্রধানকে বরখাস্ত করেন। প্রেসিডেন্টের অফিস থেকে জানানো হয়, আহমেদ সাওদিকে বরখাস্ত করা হয়েছে এবং ডেপুটি পুলিশ কমিশনার আবদুল্লাহ নওয়াজকে অন্তর্বর্তীকালীন পুলিশ প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

এর আগে আহমেদ আরিফকে বরখাস্ত করার পর সাউদিকে পুলিশ প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছিল।

অ্যাটর্নি জেনারেল মোহাম্মদ অনিল বলেন, আরিফকে বরখাস্তের কারণ হচ্ছে, মামুন বারবার ফোন করেও তাকে পাননি।

শুক্রবার মালদ্বীপ সুপ্রিম কোর্টের আদেশে অভিযোগ থেকে রেহাই পাওয়া রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তির দাবিতে রাজধানী মালেতে আন্দোলন শুরু হয়। এসময় সরকার বিরোধী বিক্ষোভকারীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদসহ অন্যান্য রাজনৈতিক বন্দিদের দণ্ড বাতিল করে রায় দেন উচ্চ আদালত। রায়ে বলা হয়, বিচারিক আদালতে সরকারের প্রভাবে দণ্ড দেয়া হয়েছিল। এ ঘটনায় নাশিদ সমর্থকরা রাস্তায় নেমে আসেন। কিন্তু পুলিশ তাদের লাঠিপেটা ও পিপার স্প্রে করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

মালদ্বীপে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রথম প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদকে সন্ত্রাসের অভিযোগে ১৩ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছিল। পরে তিনি চিকিৎসা নিতে ব্রিটেন যান এবং বর্তমানে সেখানেই নির্বাসিত আছেন।